যার কোনো মানে নেই

সদ্য-স্নাত পত্র পৃষ্ঠে স্বচ্ছ
ফোটা ফোটা বৃষ্টির জল!
তাতে টুপ করে গড়িয়ে পড়ল
মালির দু’ফোটা অশ্রুজল!

অশ্রুর ফোটা বৃষ্টির জলে
হয়ে গেল চির বিলীন!
কেউ জানলো না শোধ হলো
কি-না শত জনমের ঋণ!

চোখে কাজল ছিল না
ছিল না তো কোনো ছল!
তাই তো জল মুক্তার দানা
এতো স্বচ্ছ টলমল!

খরতাপে সাগর শুকায়
প্রান্তর চৌচির জ্বলজ্বল!
মালির চোখের দু’কূল
ছাপিয়ে জল টলটল!

পত্র পৃষ্ঠের জল শুকায়
উল্লাসে নাচে হাওয়ায়;
পত্রপল্লভ ফুলে শোভিত
বসন্তের মাতাল ছোঁয়ায়!

মালির জীবন তথৈবচ
বসন্ত বরষা সবই তমসা!
ফুলের পাশে চিরদিন তবু
পাশাপাশি দুঃখ-হতাশা!

সেরা ফুলটি আগলিয়ে রাখে
হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসায়!
সব কষ্টের অবসান হবে
শোভিত হবে প্রিয়ার খোপায়!

আশায় আশায় দিন গেল
আজও সে তো না এলো!
যুবক মালি পৌঢ় হয়েও
প্রতীক্ষার মানে খুঁজে না পেল!


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *