Sun. Apr 18th, 2021

দুর্যোগ মোকাবেলায় পৃথিবীর মানুষের কাছে শেখ হাসিনা প্রসংসিত হয়েছেন : পানি সম্পদ উপমন্ত্রী শামীম

মোহাম্মদ শাহজাহান চৌধুরী, সুনামগঞ্জ ব্যুরো প্রধান :

পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, শেখ হাসিনা দুর্যোগ মোকাবিলায় বিশ্বের মধ্যে একজন শিক্ষক বলা যায়। বিগত বন্যা, আইলা ও সর্বশেষ কোভিড -১৯ যেভাবে মোকাবিলা করেছেন তা সত্যি প্রশংসনীয় পৃথিবীর মানুষের কাছে।  তিনি বলেন, হাওরের মানুষ হাসি মূখে তাদের শ্রম ঘামে উৎপাদিত বোরো ফসল ঘরে তুলুক প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা সেটিই চান । হাওরের ফসল রক্ষাবাঁধের কাজ যাতে আগামীতে স্থায়ীভাবে করা যায়, সেই চিন্তা করছে সরকার।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১  টায় সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সংশোধিত কাবিটা নীতিমালা ২০১৭’র আওতায় কাবিটা স্কীম প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।  জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন,ফসল রক্ষাবাঁধের কাজে স্থানীয় জন প্রতিনিধিদের নামকা ওয়াসতে রাখায় একাধিক জনপ্রতিনিধিদের বক্তব্যের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যতে জন প্রতিনিধিদের গুরুত্বসহকারে দায়িত্ব দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে । ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি আরো   বলেন, ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যেই কাজ শেষ করার কথা ছিল।কিন্ত এখনো অনেক কাজ বাকী। তাই আগামী ৭ মার্চের মধ্যে অবশ্যই কাজ শেষ করতে হবে।এ জন্য যার যার অবস্থান থেকে কাজ করার আহ্বানও জানান তিনি।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মতিউর রহমান, সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সংসদ সদস্য শামীমা শাহরিয়ার, পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান বিপিএম, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত, সুনামগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা.শামস উদ্দিন, হাওর বাচাও আন্দোলন সভাপতি আবু সুফিয়ান, তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক একেএম ওয়াহিদ উদ্দিন চৌধুরী,অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী এস এম শহীদুল ইসলাম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী খুশিমোহন সরকার, নির্বাহী প্রকৌশলী সবিবুর রহমানও উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী স্পিডবোট যোগে জেলার জামালগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলার বিভিন্ন ফসল রক্ষা বাঁধের কাজ পরিদর্শন করেন।

 


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *