বিনোদন ডেস্কঃ   বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) পারিশ্রমিক নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানালেন সুরকার-সংগীত পরিচালক পার্থ মজুমদার। সম্প্রতি বিটিভির হয়ে ৮টি গানে কাজ করেছেন তিনি। পেয়েছেন এর পারিশ্রমিকও। তবে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের এমন মূল্যায়নে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি। কারণ, ৮টি গানের সুর, একদিন সংগীত পরিচালনা ও রিহার্সেলের জন্য তার পারিশ্রমিক ধরা হয়েছে ৮ হাজার ১৭২ টাকা!

ক্ষুব্ধ হয়ে পার্থ মজুমদার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘বিটিভিতে সংগীত পরিচালক হিসেবে আমার প্রথম কাজের পারিশ্রমিক বাবদ ৮,১৭২ টাকা বুঝিয়া পাইলাম। ৮টি মৌলিক গানের সুর, ১ দিন মহড়া ও ১দিন  সংগীত পরিচালনার কাজে নিয়জিত ছিলাম। এই হলো তার পারিশ্রমিক। বলিতে ইচ্ছা পোষণ করিতেছি, আমি ১০,০০০ টাকা দিতে রাজি আছি, আমার সুরগুলো ফেরত দেওয়া হোক। দয়া করিয়া কোনোদিন আমাকে আর ডাকিবেন না। যে দেশে সুকর্মের মূল্য নাই, সে দেশের উন্নতি হতে পারে না। বিদায়।’

তিনি আরও লিখেন, ‘ইহা আমার অভিমান, হয়তো ইহা আপনাদের নিয়ম, কিছুই করার নাই, এই দৈন্যদশাই আমাদের উপরে উঠার পথে অন্তরায়! তবে যতদূর জানি সরকার সব ধরনের সহযোগিতা করে থাকেন, তবে এ দশা কেন?’

পার্থ মজুমদারের এমন স্ট্যাটার পর তার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ‘বিষয়টি আমার খুবই খারাপ লেগেছে। এমনটি কাম্য নয় কখনো।’

এদিকে বিষয়টি নিয়ে কথা হয় বিটিভির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। প্রতিষ্ঠানটির ঢাকা কেন্দ্রের মহাপরিচালক নাসির মাহমুদের এ বিষয়ে সমকালকে বলেন, ‘করোনা ও রোজার কারণে আমাদের অফিস এখন সংক্ষিপ্তভাবে চলছে। আজ ইতোমধ্যেই অফিস বন্ধ হয়ে গেছে। তাই সঠিক তথ্যটি এ মুহূর্তে জানানো সম্ভব নয়। তবে আমাদের বিভিন্ন গ্রেড থাকে। সে অনুযায়ী পারিশ্রমিক দেওয়া হয়। গ্রেডের বিষয়টি নির্ভর করে শিল্পীর তালিকাভুক্ত হওয়ার সময় থেকে।

আমাদের দেশের অনেক জনপ্রিয় শিল্পীই আছেন যাদের বাইরে পারিশ্রমিক অনেক হাই। কিন্তু শুরুর ক্যাটাগরি হওয়ায় বিটিভিতে পারিশ্রমিক কম দিতে হয়। যে কারণে আমরা চাইলেও তাদের দিয়ে কাজ করাতে বা তারাও কম টাকায় কাজ করেন না। নির্দিষ্ট করে এই কেসটার (পার্থ মজুমদার) বিষয়ে এখনই বলা কঠিন। তবে আমাদের অফিস খুললে বিস্তারিত বলা যাবে।’

ক, খ, গ-সহ বেশ কয়েকটি তালিকায় বিটিভি শিল্পীর পারিশ্রমিক নির্ধারণ করে থাকে। নতুন যুক্ত হওয়া শিল্পীরা শেষের দিকের গ্রেড পান। অপর দিকে পার্থ জানান, এটা বিটিভিতে তার প্রথম কাজ।