২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

” যদি এক সঙ্গে খেলতে পারি তা হবে গর্বের ব্যাপার” : আগুয়েরো

newsup
প্রকাশিত জুন ১, ২০২১
” যদি এক সঙ্গে খেলতে পারি তা হবে গর্বের ব্যাপার” : আগুয়েরো

স্পোর্টস ডেস্কঃ  শৈশবের স্বপ্নপূরুণ করে বার্সাতে যোগ দিয়েছেন সার্জিও আগুয়েরো। ফ্রি ট্রান্সফারে তার বাই আউট ক্লজ ১০ কোটি ইউরো। আগামী ১ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে ন্যু ক্যাম্পে পাড়ি জমাবেন সিটির এই সাবেক তারকা ফুটবলার।

আগুয়েরোর বার্সায় আসার খবরে অনেকে খুশি। বিশেষ করে মেসি ভক্তরা। দুজনেই আর্জেন্টাইন। দুজনের জাতীয় দলের সতীর্থ। এবার ক্লাবের হয়ে খেলবেন দুজন। কিন্তু মেসির বার্সা ভবিষ্যত ঝুলে আছে। কারণ নতুন করে চুক্তি হয়নি তার। ফলে আগুয়েরোর সঙ্গে তার নতুন রসায়ন হবে কি না, তা নিয়ে থাকছে সংশয়।
তবে আগুয়েরো আশাবাদী, মেসি বার্সাতেই থাকবেন। এবং তার সঙ্গে তিনি খেলবেন। স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মার্কার খবর।

আগুয়েরো বলেন, ‘আশা করি আমরা এক সঙ্গে খেলব। তবে এটা তারও (মেসি) নিজস্ব ব্যাপার। সেখানে তিনি থাকবেন কি না। তবে আমি খুবই খুশি এখানে আসতে পেরে। যদি এক সঙ্গে খেলতে পারি (মেসির সঙ্গে) তা হবে গর্বের ব্যাপার। কারণ তার সম্পর্কে আমি জানি।’

মেসি বার্সায় থাকবেন বলেও আশাবাদি তিনি, ‘আশা করি সে বার্সাতে থেকে যাবেন। তার সঙ্গে আমার প্রতিদিন কথা হচ্ছে। কিন্তু কী কথা হয়, তা বলব না। সে আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছে।’

জাতীয় দলের সতীর্থ বলে নয়। মেসিকে আগুয়েরো চেনেন সেই শৈশব থেকে। তিনি বলেন, ‘আমি তাকে চিনি সেই বালক বয়স থেকে। এক সাথে ট্রেনিং করেছি। সেই তুলনায় জাতীয় দলে তো কমই সময় কাটিয়েছে তার সঙ্গে।’

বার্সার প্রশংসাা করে আগুয়েরো বলেন, ‘আমি খুশি এখানে আসতে পেরে। আমি আমার সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করব যাতে ট্রফি জিততে পারি। এটা খুবই আনন্দের। এই ক্লাব (বার্সা) বিশ্বের সেরা টিম।’

‘শৈশব থেকেই স্বপ্ন ছিল এই ক্লাবের। কিন্তু হয়ে যাবে তা ভাবিনি। কিন্তু সুযোগ আসলে সব কিছু দ্রুত হয়ে যায়। যখন বার্সা আমাকে কল দিল, আমি কোন সংশয়ে ছিলাম না। কারণ অন্য কোন টিমে আমি যাব না। আমি শুধু বার্সেলোনাকেই চেয়েছিলাম।’


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast