৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

দ. আফ্রিকায় বাংলাদেশিসহ প্রবাসীদের দোকানে চলছে লুটপাট

Syed
প্রকাশিত জুলাই ১৫, ২০২১
দ. আফ্রিকায় বাংলাদেশিসহ প্রবাসীদের দোকানে চলছে লুটপাট

অনলাইন ডেস্ক : দক্ষিণ আফ্রিকায় সাবেক প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমাকে কারাগারে পাঠানোর প্রতিবাদ থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ ও দাঙ্গা সহিংসতা অব্যাহত আছে। এরই মধ্যে এ দাঙ্গায় নিহতের সংখ্যা ৭২ জনে পৌঁছেছে। মারাত্মক আকারে ছড়িয়ে পড়েছে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট। এসব ঘটনায় ইতোমধ্যে পুলিশ ১২শর বেশি মানুষকে গ্রেপ্তার করলেও সহিংসতা থামানো যাচ্ছে না। ফলে দেশজুড়ে মোতায়েন করা হয়েছে সেনা। দেশটির প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা চলমান সহিংসতাকে ১৯৯০-এর দশকের পর সবচেয়ে ভয়াবহ বলে বর্ণনা করেছেন। এভাবে লুটপাট চলতে থাকলে কিছু এলাকায় খাবারের সংকট দেখা দিতে পারে বলে মঙ্গলবার সতর্ক করেছেন মন্ত্রীরা।

গত জুনে ১৫ মাসের কারাদ-াদেশ পাওয়ার পর গ্রেপ্তার এড়াতে গত ৭ জুলাই পুলিশের কাছে ধরা দেন জ্যাকব জুমা। পরে তাকে জেলে পাঠানো হয়। আর এর প্রতিবাদেই ফুঁসে ওঠেন জুমার সমর্থকরা। বিক্ষোভ প্রথম দানা বাঁধে জুমার নিজ প্রদেশ কাওয়াজুলু নাটালে। পরে তা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। এদিকে এই

বিক্ষোভ ও সহিংসতায় বিপদে পড়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকায় থাকা বাংলাদেশিরা। দেশটিতে বর্তমানে দুই লাখের বেশি বাংলাদেশি নানা ব্যবসাবাণিজ্যে যুক্ত আছেন। গত শনিবার থেকে ছড়িয়ে পড়া দাঙ্গায় তাদের অনেকের দোকানেই ব্যাপক লুটপাট হয়েছে। ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফের খবরে বলা হয়েছে- গত কয়েক দিনে বাংলাদেশি, ভারতীয়সহ প্রবাসীদের দোকানপাটে এমন লুটপাট চালানো হয়েছে যে, তাদের অনেকে নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন। অনেকে যেটুকু সম্পদ লুটপাট থেকে রক্ষা করেছেন, তা লাঠি হাতে দলবেঁধে পাহারা দিচ্ছেন।

বাংলাদেশ থেকে তিন বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে ব্যবসা শুরু করেছিলেন রেদওয়ান হোসেন। গত সোমবারের দাঙ্গায় নিজের দোকান রক্ষা করা গেলেও ব্যাপক লুটপাট হয়েছে তার চাচাতো ভাইয়ের দোকানে। তাই গত মঙ্গলবারও রেদওয়ান আবার হামলার ভয়ে নিজ দোকানের সামনে বেসবলের ব্যাট নিয়ে পাহারা দিয়েছেন বলে জানান। রেদওয়ান বলেন, এখানে আরও অনেক বাংলাদেশির দোকানে লুটপাট হয়েছে। হামলাকারীরা এত বেশি ছিল যে, পুলিশ তাদের কিছু করতে পারেনি। তাই আমরা নিজেরাই এ এলাকাকে তাদের হাত থেকে রক্ষার চেষ্টা করছি।

রেদওয়ান আরও জানান, হামলাকারীরা তার ভাইয়ের দোকানে কিছু অবশিষ্ট রাখেনি। তারা এমনভাবে লুটপাট ও ভাঙচুর চালিয়েছে যে, দোকান পুরো ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। সেই ভয়ে মঙ্গলবারও রেদওয়ান, তার ভাই ও আশপাশে বাস করা ভারতীয়রা লাঠি-বন্দুক-দা নিয়ে দোকানের সামনে পাহারা দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমাদের কাছে দুটি বন্দুক আছে। এগুলো ছাড়া আমরা লুটপাটকারীদের ঠেকাতে পারব না। একটা গুজব ছড়িয়েছে যে, লুটেরা ও দাঙ্গাবাজরা বুধবার সন্ধ্যায় আবার শহরে ঢুকতে পারে। তাই আমরা প্রস্তুত থাকতে চাইছি।

দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যবসায়ী নেতা বুসিশিউয়ি মাভুসোর বরাত দিয়ে দ্য ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, গত সোমবার একরাতেই দেশজুড়ে ২০০টিরও বেশি শপিংমলে লুটপাট ও ভাংচুর চালায় দাঙ্গাকারীরা। যার মধ্যে অনেক বিদেশি নাগরিকের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানও আছে।


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast