২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

মাদকের ছোবল থেকে নতুন প্রজন্মকে রক্ষা করতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

newsup
প্রকাশিত অক্টোবর ১০, ২০২১
মাদকের ছোবল থেকে নতুন প্রজন্মকে রক্ষা করতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজ ডেস্কঃ  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি বলেছেন, মাদকের ছোবল থেকে নতুন প্রজন্মকে রক্ষা করতে হবে। মাদক যে ভয়ঙ্কর নেশা, এটা যে সমাজকে, পরিবারকে ধ্বংস করে দেয়-এটা মানুষকে বুঝাতে হবে। শুধু কঠোর হলেই মাদক বন্ধ করা যাবে না। মানুষকে বুঝিয়ে তাদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। যেমন করে আমরা জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়িয়েছিলাম। মাদকের হাত থেকে নতুন প্রজন্মকে রক্ষা করতে না পারলে আমরা পথ হারিয়ে ফেলব।’

গতকাল শনিবার বিকেলে মৌলভীবাজারের জুড়ী থানা প্রাঙ্গণে নবনির্মিত ভবন উদ্বোধনী সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার মো. জাকারিয়ার সভাপতিত্বে তিনি আরও বলেন, ‘নতুন প্রজন্মকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে বাঁচাতে পুলিশসহ বিভিন্ন বাহিনীর সাথে আমাদের সকলকে দায়িত্ব নিতে হবে। তবেই যুবশক্তিকে কাজে লাগিয়ে আমাদের কাক্সিক্ষত উন্নয়নের লক্ষ্য মাত্রা অর্জন করা সম্ভব হবে।’

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশের আয়োজনে মন্ত্রী সেখানে জুড়ী থানার নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন এবং ‘একটি আধুনিক থানার জন্মকথা’ শীর্ষক স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ পুলিশের অনেক ঐতিহ্য রয়েছে। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে যেদিন রাজারবাগ পুলিশ ঘুরে দাঁড়িয়েছিল; সেখান থেকেই শুরু হয়েছিল বাংলাদেশ পুলিশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ। আমরা যখন মুক্তিযুদ্ধে বিভিন্ন অঞ্চলে গিয়েছি, সেখানে পুলিশ বাহিনীর দুই একজন সাথে থাকতেন। থানা থেকেই আমরা অস্ত্র পেয়েছিলাম মুক্তিযুদ্ধের সময়। কাজেই পুলিশ বাহিনীর সঙ্গে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের অনেক ইতিহাস রয়ে গেছে। ’৭৫ সালে রাজারবাগের ভাষণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব আহ্বান করেছিলেন, তোমরা জনগণের পুলিশ, তোমরা মানবতার পুলিশ। তোমাদেরকে নিয়ে যেন গর্ব করতে পারি। আজ কিন্তু আমাদের পুলিশ সেই জায়গাটাতে আসছে।’

পুলিশের কার্যক্রম সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘আজ থেকে বারো বছর আগের পুলিশ আর আমাদের পুলিশ এক নয়। কারণ বঙ্গবন্ধুর কন্যা এখন নেতৃত্বে। তিনি জনগণের পুলিশ হওয়ার জন্যই এই পুলিশকে তৈরি করেছেন। আজকে জনগণের যা প্রয়োজন পুলিশ সর্বাগ্রে সেখানে উপস্থিত। জঙ্গী দমন, বন দস্যু, সন্ত্রাস দমন, সব জায়গায়ই পুলিশ আজকে তাদের দক্ষতার-সক্ষমতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যা কিছু করেন ৫০ বছর পরের চিন্তা করেই করেন। ৫০ বছর পরে কি ডিমান্ড হবে বাংলাদেশের। কোথায় যাবে বাংলাদেশ। এই চিন্তা করে পুলিশের জনবল, সক্ষমতা বৃদ্ধি থেকে শুরু করে প্রশিক্ষণসহ অবকাঠোমো সকল কিছুর উন্নয়ন করছেন।

তিনি আরও বলেন, ‘পুলিশ শুধু চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে না। মানবিক কাজ করছে। তারা কোভিডের সময় এর স্বাক্ষর রেখেছে। যখন সন্তান তার মাকে হাসপাতালে ফেলে এসেছেন, লাশের কাছে যাননি; পুলিশই তখন প্রথম এগিয়ে এসে দাফন করেছে। কোভিডের সময় পুলিশ নিজের জীবন বিপন্ন করে মানবতার সেবার দাঁড়িয়েছিল। সে সময় প্রধানমন্ত্রীর ডাকে আমরা কোভিড মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছি। যখন সারা বিশ^ অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে; সেখানে বাংলাদেশ কিন্তু পথ হারায়নি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় পথ হারাইনি বলে এই মহামারি আমরা সফলভাবে মোকাবেলা করতে পেরেছি। ফলে কৃষি-শিল্পসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েনি।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন এমপি বলেন, ‘দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা দিন দিন ভালো হচ্ছে। তাই দেশের অগ্রযাত্রা কোনো অপশক্তি রুখতে পারবে না।’ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ থেকে স্বাধীনতা বিরোধীদের ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে হবে।’ প্রবাসে অবস্থানকারীদের পাসপোর্ট নিয়ে বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় পড়ার কথা উল্লেখ করে সমস্যা নিরসনের জন্য তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানান।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) সুদর্শন কুমার রায়ের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নেছার আহমদ এমপি, সংরক্ষিত নারী আসনের (মৌলভীবাজার-হবিগঞ্জ) সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন এমপি, সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. নিশারুল আরিফ, মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান, জুড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এমএ মোঈদ ফারুক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা বদরুল হোসেন প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ।

এর আগে মন্ত্রীদ্বয় জুড়ী থানা প্রাঙ্গণে প্রবেশের পর ফলক উন্মোচন করে নবনির্মিত থানা ভবনের উদ্বোধন করেন। পরে সেখানে গোলাপ ও কামিনী ফুল গাছের চারা রোপণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
উল্লেখ্য, ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে সরকারের গণপূর্ত অধিদপ্তর ৭ কোটি ৩১ লাখ ৪৪ হাজার ৩শ ৫০ টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেছে। ২০১৬ সালের ২৯ নভেম্বর এর নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
October 2021
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast