৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

প্রধানমন্ত্রী ইউরোপ সফরে যাচ্ছেন আজ

newsup
প্রকাশিত অক্টোবর ৩১, ২০২১
প্রধানমন্ত্রী ইউরোপ সফরে যাচ্ছেন আজ

নিউজ ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৩ দিনের সরকারি সফরে ইউরোপের উদ্দেশে আজ সকালে ঢাকা ছাড়বেন। তিনি প্রথমে জাতিসংঘের ২৬তম জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সম্মেলনে (কপ-২৬) যোগ দেবেন। এটি স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে আজ শুরু হচ্ছে। সম্মেলনে শেখ হাসিনা বাংলাদেশের পাশাপাশি ৪৬ জাতির ফোরাম সিভিএফের (ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরাম) নেতৃত্ব দেবেন। প্রধানমন্ত্রী পরে ফ্রান্স সফরে যাবেন। সেখানে জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কোর ৪১তম সম্মেলনে যোগ দেবেন। সংস্থাটি প্রথমবারের মতো ‘ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর দ্য ক্রিয়েটিভ ইকোনমি’ পুরস্কার প্রধানমন্ত্রী প্রদান করবেন।

প্রধানমন্ত্রীর এ সফর উপলক্ষ্যে শনিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একেএম আবদুল মোমেন। এ সময় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন। পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, কপ-২৬ এ প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল যোগ দেবে। এরমধ্যে সোমবার ও মঙ্গলবার সম্মেলনের শীর্ষ বৈঠকসহ আরও গুরুত্বপূর্ণ শীর্ষ পর্যায়ের সভায় অংশ নেবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী সোমবার কপ-২৬ এর শীর্ষ বৈঠকে ভাষণ দেবেন। একই দিন সকালে সিভিএফ-কমনওয়েলথের একটি যৌথসভায় প্রধানমন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসাবে অংশ নেবেন। এছাড়া ওইদিনই তিনি যুক্তরাজ্যের আমন্ত্রণে ‘অ্যাকশন অ্যান্ড সলিডারিটি-দ্য ক্রিটিক্যাল ডিকেইড’ শীর্ষক সভায় যোগ দেবেন। পরেরদিন ‘ওমেন অ্যান্ড ক্লাইমেট’ শীর্ষক সভায় অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ বর্তমানে সিভিএফ সভাপতি। সেই হিসাবে জলবায়ু বিপন্ন দেশগুলোর নেতা হিসাবে শেখ হাসিনা সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর অধিকার আদায়ে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবেন। তার সভাপতিত্বে এ সম্মেলনে ‘সিভিএফ-কপ-২৬ লিডার্স ডায়ালগ’ অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে জলবায়ু পরিবর্তন রোধ, অভিযোজন ও অর্থায়নের লক্ষ্যে আহ্বান জানিয়ে ‘ঢাকা-গ্লাসগো ডিক্লারেশন’ গৃহীত হবে বলে উল্লেখ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এছাড়া যুক্তরাজ্য সফরকালে প্রধানমন্ত্রী স্কটিশ পার্লামেন্টের সদস্যদের উদ্দেশে ‘আ কল ফর ক্লাইমেট প্রসপারিপি’ শীর্ষক একটি বিশেষ বক্তব্য দেবেন। সম্মেলনে শেখ হাসিনা সব শীর্ষ পর্যায়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার পাশাপাশি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও শ্রীলংকার রাষ্ট্রপতিসহ আরও বিশ্ব নেতা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সাক্ষাতে মিলিত হবেন। ৩-৮ নভেম্বর এসব কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে ওয়েস্টমিনিস্টার প্যালেসে যুক্তরাজ্যের সংসদের সদস্যদের উদ্দেশে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে একটি বিশেষ বক্তব্য দেবেন। পাশাপাশি বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশন ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আয়োজিত বিনিয়োগ সম্মেলনে ভার্চুয়ালি অংশ নেবেন। এছাড়াও তিনি লন্ডনে বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু বিষয়ে গোপন দলিলপত্রের নতুন প্রকাশিত খণ্ডগুলোর মোড়ক উন্মোচন করবেন। গ্লাসগোতে অবস্থানকালেই প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাজ্যের প্রিন্স অফ ওয়েলসের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অংশ নেবেন।

প্রধানমন্ত্রীর ফ্রান্স সফর শুরু হবে ৯ নভেম্বর। তিনি সেখানে ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত অবস্থান করবেন। সফরকালে ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার দ্বিপাক্ষিক বৈঠক আয়োজন করা হচ্ছে। এছাড়া ফ্রান্সের অন্যান্য মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক সাক্ষাতের প্রস্তাব রয়েছে। পাশাপাশি ফ্রান্সের বেশ কিছু কোম্পানির প্রধানসহ শীর্ষস্থানীয় ফরাসি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিত্বকারী সংস্থা ‘এমইডিইএফ’র একটি প্রতিনিধি দল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের অনুরোধ জানিয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এ সফরকালে বাংলাদেশ ও ফ্রান্সের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও উচ্চতর পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। ফরাসি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বৈঠকালে বিভিন্ন বিষয়ে কয়েকটি সমঝোতা স্মারক ও লেটার অফ ইনটেন্ট সই হতে পারে। এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, কূটনৈতিক ব্যবস্থা অনুযায়ী যে কোনো চুক্তি বা স্মারক সই পূর্ববর্তী সময় পর্যন্ত দর কষাকষি চলে। এ কারণে লেটার অব ইনটেন্টে কী থাকছে-তা এখনই বলা যাচ্ছে না। প্যারিস সফরকালে প্রধানমন্ত্রী ইউনেস্কোর বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। এ বছর প্রথমবারের মতো ইউনেস্কো ‘সৃজনশীল অর্থনীতি’র (ক্রিয়েটিভ ইকোনমি) ওপর পুরস্কার দিচ্ছে। বাংলাদেশের প্রস্তাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে তার নামে এই আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন করা হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ১১ নভেম্বর ইউনেস্কো সদর দপ্তরে এ পুরস্কারটি বিজয়ী ব্যক্তি-সংস্থাকে প্রদান করা হবে। প্রধানমন্ত্রী প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিতব্য এ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে সশরীরে যোগ দিয়ে বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা তুলে দিতে পারেন বলে আশা করা যাচ্ছে। একই দিনে সাবেক ফরাসি বাণিজ্যমন্ত্রী ও বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সাবেক মহাপরিচালক প্যাসকেল ল্যামির আমন্ত্রণে প্যারিস পিস ফোরামের উচ্চপর্যায়ের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী যোগ দিতে পারেন। এছাড়া ১২ নভেম্বর ইউনেস্কোর ৭৫তম বার্ষিকী উদ্যাপন উপলক্ষ্যে একটি উচ্চপর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হবে, যেখানে অংশ নিতে ইউনেস্কোর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এ সভায় অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিশ্বজনীন আদর্শ তুলে ধরার পাশাপাশি জাতিসংঘ কর্তৃক গৃহীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশের সাফল্য বিশ্বের সামনে তুলে ধরবেন। প্যারিসে অবস্থানকালে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ইউনেস্কোর মহাপরিচালক অদ্রে আজুলের একটি দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে।


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast