২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

কুলাউড়া উপজেলার রবিরবাজার জামে মসজিদ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ মসজিদ

editor
প্রকাশিত আগস্ট ১৯, ২০২০
কুলাউড়া উপজেলার রবিরবাজার জামে মসজিদ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ মসজিদ

আশীষ কুমার ধর, কুলাউড়া প্রতিনিধি: বাংলাদেশের অন্যতম সর্ববৃহৎ মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার রবিরবাজার জামে মসজিদ। ঐতিহ্যবাহী রবিরবাজার জামে মসজিদ সকল ধর্ম ও বর্ণের মানুষের কাছে অত্যন্ত প্রিয়। ঐতিহ্যবাহী এই মসজিদের আশ্চর্যজনক এমন কিছু তথ্যভান্ডার আছে, যা শুনলে আপনি সত্যিই অবাক হয়ে যাবেন। এই মসজিদটির অবস্থান মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা ইউনিয়নের রবিরবাজার নামক স্থানে। উল্লেখিত এই বাজারটি মৌলভী রবি খাঁ প্রতিষ্ঠা করেন এবং তারই নামের অনুসরণে এর নামকরণ করা হয় রবিরবাজার। রবিরবাজারের ইতিহাস ও ঐতিহ্য অনেক পুরানো। বাজারে প্রায় আড়াই’শ বছর আগে পৃথিমপাশার সাহেব বাড়ির বেগম তালেবুন নেছা খাতুনের নিজস্ব উদ্যোগে এই মসজিদ নির্মিত হয়। মসজিদটি আয়ের দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে সেরা। প্রতি সপ্তাহে মসজিদের পিলারের বাক্স হতে পাওয়া যায় সোনা, রোপা, বিভিন্ন দেশের মূল্যবান মুদ্রা ও টাকা মিলিয়ে প্রায় ৭-৮ লক্ষ টাকা। বাজারের বিশাল আয়তন দখল করে আছে এই মসজিদ। বর্তমানে মসজিদের নতুন ভবন নির্মান কাজ চলছে। প্রায় ৫০ হাজার মুসল্লি / সাহাবি এক সাথে নামাজ আদায় করার লক্ষে নির্মিত হচ্ছে নতুন ভবন। তাছাড়াও মসজিদের রয়েছে অনেক সম্পদ। জমিজমাসহ এই বাজারে রয়েছে একটি বিশাল মার্কেট। রবিরবাজার জামে মসজিদের জমানো টাকার মুনাফা দিয়ে এলাকার সুবিধাবঞ্চিত স্থানীয় মানুষদের নিয়মিত সহযোগিতা করা হয় এবং আর বিভিন্ন মসজিদের কাজে লাগানো হয়। মোগল এবং ইসলামী স্থাপত্যের আদলে আধুনিকভাবে টাইলস ও মার্বেল পাথরের কারুকাজ খচিত নবনির্মিত জামে মসজিদের (১ম ভাগ) সম্প্রতি উদ্বোধন করা হয়েছে। পুরনো মসজিদে মুসল্লিদের নামাজের স্থান সংকুলান না হওয়ায় মসজিদ পরিচালনা কমিটির উদ্যোগে ২০১৩ সালের শেষ দিকে এলাকার লোকজনের দানকৃত জমি ও দেশ-বিদেশের বিভিন্ন পর্যায়ের মানুষের আর্থিক সহযোগিতায়, নতুনভাবে স্থায়ী পরিকল্পনা অনুযায়ী ৫ তলাবিশিষ্ট প্রায় ১ লাখ বর্গফুট আয়তনের সিলেট বিভাগের মধ্যে ব্যয়বহুল অপূর্ব নির্মাণশৈলীর বৃহত্তর এ মসজিদ ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। মসজিদের উপর ৫০ ফুট উচ্চতার ২টি মিনার, ৭টি গোলাকার গম্বুজ ও নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্য সিসি টিভি, মসজিদের ডানদিকে গাড়ি পার্কিং, প্রতি তলায় অযুর ব্যবস্থা ও সুবিশাল টয়লেট এবং এক পাশে নারীদের জন্য নামাজের ব্যবস্থা থাকবে।

মসজিদটির বর্তমান সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাছ খান, সাধারণ সম্পাদকের গুরুত্বপুর্ন পদে আছেন আলী আজমদ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল আজিজ। খতিব হিসেবে দায়িত্বরত আছেন রবিরবাজার আলীম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মৌলানা আব্দুল জব্বার।

এলাকার মধ্যে একটি কথা প্রচলিত আছে যে যে নিয়তে এই মসজিদে দান করবেন তা মহান আল্লাহ তায়ালা তা কবুল করেন। এই কারণে অনেকে অনেক দুর দুরান্ত থেকে প্রতি শুক্রবার জুম্মার নামাজ আদায় করার জন্য হাজার হাজার লোক এখানে নামাজ আদায় করেন এবং মুক্ত হস্তে দান করেন।

সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুল আজিজ জানান, নতুন মসজিদটির পুরো ডিজাইন করেছেন প্রখ্যাত প্রকৌশলী মোঃ মহতোছিন আলী, মসজিদটি পুরোপুরি সম্পন্ন করতে হলে কমপক্ষে ২৫ কোটি টাকার প্রয়োজন বলে তিনি জানান। এরই মধ্যে মসজিদটির প্রায় ৩৫%-৪০% কাজ শেষ হয়েছে। তিনি আশা করেন এলাকার দেশী ও প্রবাসী ভাইবোনেরা সবাই যদি মুক্ত হস্তে মসজিদের নির্মাণ কাজে অনুদান দিয়ে সাহায্য করেন তাহলে খুবই দ্রুত মসজিদের কাজ সম্পন্ন হবে। তিনি আশাবাদী আগামী ৩/৪ বৎসরের মধ্যে মসজিদটির পুরো কাজ সম্পন্ন হবে। এজন্য সবাইকে মসজিদের উন্নয়ন কাজে এগিয়ে আসার জন্য আহবান জানান।

তিনি দাবী করেন মসজিদটির পুরো কাজ সম্পন্ন হলে এটা হবে বাংলাদেশের মধ্যে অন্যতম বৃহৎ মসজিদ। যেটি অনন্য মোগল এবং ইসলামী স্থাপত্যের আদলে নির্মিত হবে।#


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast