২৩শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

নগরীতে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের সার্ভে শুরু আজ থেকে, বিশেষজ্ঞ টিমের পরিদর্শনের পর বন্ধ মার্কেট খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত

newsup
প্রকাশিত জুন ১০, ২০২১
নগরীতে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের সার্ভে শুরু আজ থেকে, বিশেষজ্ঞ টিমের পরিদর্শনের পর বন্ধ মার্কেট খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত

নিউজ ডেস্কঃ

শাবি প্রশাসন ও সিসিক কর্তৃপক্ষের বৈঠক

নগরীতে ভূমিকম্পের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ ভবন নির্ণয়ে এক সাথে কাজ করবে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) এবং সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক)। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ (সিইই) ও পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষকরা এই কাজ করবেন। ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলোকে খুঁজে বের করে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ভাগ করে এসব ভবন কতটুকু ঝুঁকিপূর্ণ- এ নিয়ে সিসিককে পরামর্শ দেবে শাবি। গতকাল বুধবার বিকেলে উপাচার্যের কনফারেন্স কক্ষে সিসিকের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে,সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান জানিয়েছেন শাবির বিশেষজ্ঞ টিম পরিদর্শনের পর তাদের নির্দেশনা পেলে খুলে দেয়া হবে ঝূঁকিপূর্ণ হিসেবে বন্ধ থাকা মার্কেট বা ভবন।

সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীও জানিয়েছেন, আজ বৃহস্পতিবার শাবি’র বিশেষজ্ঞরা নগরীর ঝুঁকিপূর্ণ ভবন সমূহের সার্ভে (জরিপ) শুরু করবেন। পর্যায়ক্রমে তারা নগরীর বাকি সব ভবনও সার্ভে করবেন। এ নিয়ে শাবি’র সাথে সিসিক-এর একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে বলে জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, সিলেটের সাম্প্রতিক ভূমিকম্প নিয়ে জনমনে কিছুটা আতংক বিরাজ করছে। এ অবস্থায় নগরীর ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকা তৈরী করতে আমাদের সহযোগিতা চেয়েছে সিসিক।

তিনি আরো বলেন, আমাদের শিক্ষকরা সরেজমিনে গিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো চিহ্নিত করে রিপোর্ট প্রদান করবে সিসিক কর্তৃপক্ষের কাছে। সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ রিপোর্ট অনুযায়ী ভবনগুলোর বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। এ নিয়ে সিসিকের সাথে একটি সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর(এমওইউ) করা হবে। সভায় উপস্থিত ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ছাড়াও সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্ম সচিব) বিধায়ক রায় চৌধুরী ও প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ছাড়াও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম, এপ্লাইড সায়েন্সেস এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোস্তাক আহমেদ, সিভিল এন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আজিজুল হক, পেট্রোলিয়াম এন্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল আলম, বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরহাদ হাওলাদার, সিইই বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. জহির বিন আলম, সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. ইমরান কবীর, রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন, প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ হাবিবুর রহমান প্রমুখ।

সিসিকের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘আমরা ভবন সংশ্লিষ্ট সকলকে চিঠি দিয়েছি। তাদের জানানো হয়েছে বিশেষজ্ঞ দিয়ে পরীক্ষা করে সে প্রতিবেদন আমাদের কাছে জমা দিতে। তাঁর পর আমাদের বিশেষজ্ঞ টিম এটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন। কিন্তু পরীক্ষা ছাড়া কোনভাবেই ঝুঁকিপূর্ণ এসব মার্কেট বা ভবন ব্যবহার করা যাবে না।’ নূর আজিজুর রহমান আরো জানান, শাবির বিশেষজ্ঞ টিম আজ বৃহস্পতিবার থেকেই তাদের কাজ শুরু করে দিতে পারেন। বন্ধ থাকা মার্কেটগুলোও পরিদর্শন করতে পারেন।

প্রসঙ্গত, সিলেট নগরীর ২৪টি ভবনকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে সিসিক। এর মধ্যে গত ৩০ মে’র ভূমিকম্পের পর নগরীর ৬টি মার্কেট, একটি দোকান ও একটি আবাসিক ভবন ১০ দিনের জন্য বন্ধের নির্দেশনা দেয় সিসিক।


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast