২৪শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

বার্মিংহামের নৌকা বাইচ পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন — নৌকা বাইচ বয়কটের আহবান

Syed
প্রকাশিত জুলাই ৫, ২০২১
বার্মিংহামের নৌকা বাইচ পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন — নৌকা বাইচ বয়কটের আহবান

বাংলা কাগজ ডেস্ক : গত কয়েক বছর ধরে বার্মিংহামের এজবাষ্টন রিজর্ভরে অনুষ্টিত হওয়া নৌকা বাইচের পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা-পক্ষপাতিত্বমুলক আচরণ,বাংলাদেশী হাইকমিশনকে আমন্ত্রন না জানানো এবং কমিউনিটির শীর্ষ নেতৃবৃন্দের অবজ্ঞাসহ নানা অভিযোগে চলতি বছর অনুষ্টিত হতে যাওয়া নৌকা বাইচ বয়কটের আহবান জানিয়েছে নৌকা বাইচে নিয়মিত অংশ নেওয়া একাধিক দল। গত ৩০ জুন বার্মিংহামের আষ্টনের ভিউ ভিলা কমিউনিটি হলে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ তুলে এই বয়কটের আহবান জানিয়ে কমিউনিটির নেতৃবৃন্দেকেও এবারের নৌকা বাইচ বয়কটের আহবান জানান সংবাদ সম্মেলন আয়োজনকারীরা। বার্মিংহামের বাঙালী কমিউনিটির বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত উক্ত সংবাদ সম্মেলনে টিম ভাটি বাংলার কর্মকর্তা গুলজার আহমেদ ফয়ছলের সঞ্চালনায় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সিলেট স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রব। এসময় গুলজার আহমেদ ফয়ছল ও আব্দুর রব ছাড়াও মঞ্চে উপস্থিত থেকে গনমাধ্যমকর্মীদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন কমিউনিটি নেতা জুবের আলম,সিলেট স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি মাসুক মিয়া ও ভাটি বাংলার বেলাল উদ্দিন। এসময় জানানো হয়,কমিউনিটির মানুষকে নির্মল বিনোদন প্রদানে ঐক্যবদ্ধভাবে একটি অনুষ্ঠান আয়োজন এবং বাঙালী সংস্কৃতি-কৃষ্টি-ঐতিহ্যকে নতুন প্রজন্মসহ প্রবাসীদের কাছে তুলে ধরার প্রয়াস হিসেবে বার্মিংহামে আবহমান গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যের প্রতীক নৌকা নৌকা বাইচের প্রচার করা হলেও আয়োজকরা তা পুরোপুরি ভিন্ন একটি স্বার্থ হাসিলের প্রয়াস হিসেবে পরিচালনা করছে। তথাকথিত নৌকা বাইচ আয়োজনের নেপথ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্টান থেকে ফান্ড এনে দায়সারা গোছের অনুষ্টান করাই আয়োজকদের মুল উদ্দেশ্য উল্লেখ করে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়,নৌকা বাইচকে কেন্দ্র করে বাঙালীদের সংস্কৃতি কৃষ্টির প্রচারে খোলামঞ্চ থেকে বিজাতীয় সংস্কৃতিকেই প্রাধান্য দেওয়া ছাড়াও কমিউনিটির মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার কথা বলে পুরো কমিউনিটিকেই এড়িয়ে মুষ্টিমেয় কিছু ব্যক্তিদের নিয়ে ইচ্ছে মতো অনুষ্টান করে অনৈক্য ও পারস্পরিক দ্বন্ধের সৃষ্টি করছে নৌকা বাইচের আয়োজকরা। এমনকি এতে যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বকারী বাংলাদেশী হাইকমিশনার কিংবা বার্মিংহামের বাংলাদেশী সহকারী হাইকমিশনারকেও আমন্ত্রণ জানানো হয় না। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়,নৌকা বাইচে আমন্ত্রণ জানানো হয় না কমিউনিটির অধিকাংশ সম্মানিত নেতৃবৃন্দ ও কমিউনিটির নেতৃত্ব প্রদানকারী বিভিন্ন সংগঠনকেও।

       
নৌকা বাইচের ফলাফলেও র্দুনীতির মাধ্যমে পক্ষপাতিত্ব করে নিজেদের পছন্দনীয় টিমকে বিজয়ী করা অনেকটা নিয়মিত হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়,অন্যান্য বছরগুলোতে তীক্ষè কারচুপির মাধ্যমে ফলাফল ঘোষনা করা হলেও সর্বশেষ নৌকা বাইচে নির্লজ্জ কারচুপির মাধ্যমে সেমিফাইনালে যাওয়া সিলেট স্পোর্টিং ক্লাবকে বাদ দিয়ে পরিকল্পিতভাবে অন্য একটি টিমকে বিজয়ী ঘোষনা করা হয়। একই ভাবে ভাটি বাংলা টিম বার্মিংহাম ষ্পষ্ট এগিয়ে থাকলেও বিজয়ী ঘোষনা করা হয় আয়োজকদের পছন্দসই টিমকে। এমন কাল্পনিক রেজাল্টে তখন অংশগ্রহণকারী দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাসহ সাধারণ মানুষদের মধ্যেও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে আয়োজকরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার বিষয়ে উদ্যোগী না হয়ে সাধারণ দর্শকদের প্রতি বিরুপ মন্তব্য করে পরিস্থিতিকে আরো মারমুখী করে তুলে ; যা সঙ্গেই সঙ্গেই বিভিন্ন সোশাল মিডিয়ায় প্রচার হওয়ায় সব স্থানেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। এই ঘঠনায় সর্বমহলে বাঙালী কমিউনিটির বিষয়ে নেতিবাচক ইমেজ আসার ভয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে উপস্থিত কমিউনিটির অনেকেই তাৎক্ষনিকভাবে ভূমিকা রাখেন এবং নৌকা বাইচ পরিচালনা কমিটির কয়েকজন সদস্য পরবর্তীতে সকলের সাথে বৈঠকে বসে বিষয়টি সুরাহার প্রতিশ্রæতি দেন। অথচ প্রায় দুই বছর অতিবাহিত হলেও আয়োজকরা কমিউনিটির কারো সাথে নুন্যতম আলোচনা করারও প্রয়োজনীয়তা অনুভব না করে কমিউনিটির স্বার্থকে গুরুত্ব দিতে যে টিমগুলোকে তখন অনুনয় বিনয় করে বিষয়টি মেনে নেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলো,তাদের কারোর সাথেই যোগাযোগ না করে আয়োজকরা এবার নৌকা বাইচ আয়োজন করার ঘোষনা দিয়েছে। কমিউনিটির মধ্যে বিভক্তি ছড়িয়ে নৌকা বাইচের মাধ্যমে সকলকে ধোঁকা দিয়ে অর্থ উপার্জনসহ আয়োজকদের নানা অশুভ পরিকল্পনার বিষয়টি সকলের কাছে তুলে ধরা এবং নৌকা বাইচ বয়কট করার জন্য সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে জানিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়,কমিউনিটির সবাইকে বিষয়গুলো অবহিত করা হচ্ছে,যাতে অন্ততঃ সবাই অনুধাবন করতে পারে নৌকা বাইচ বাঙালী কমিউনিটির স্বার্থে নয়,নিজেদের পকেট ভারী করতেই আয়োজন করা হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলন থেকে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের কাছে অনুরোধ জানিয়ে বলা হয়,এই হীন কাজের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সবাই মিলে নৌকা বাইচকে বয়কট করলে দুর্নীতিবাজ নৌকা বাইচ পরিচালনা কমিটির হীন স্বার্থগুলো চারিতার্থ হবে না।

সংবাদ সম্মেলনে বার্মিংহামের বাঙালী দুই কাউন্সিলর জিয়াউল ইসলাম এমবিই ও কাউন্সিলর সাদেক মিয়া শামসু ছাড়াও কমিউনিটির বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বার্মিংহাম আওয়ামিলীগের সভাপতি আলহাজ্ব কবীর উদ্দিন,বার্মিংহাম জাতীয় পার্টির সেক্রেটারী আলহাজ্ব আব্দুল কাদির আবুল,বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি কামাল আহমেদ,বার্মিংহাম বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ছমির আলী,বার্মিংহাম বাংলাদেশ মাল্টিপারপাস সেন্টারের ডাইরেক্টর আলহাজ্ব আনা মিয়া,মৌলভীবাজার জেলা জনকল্যাণ কাউন্সিলের মিডল্যান্ডস ইউকের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল বাবলু,সুনামগঞ্জ উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি ফখরুল ইসলাম,লেবার ফ্রেন্ডস অফ বাংলাদেশ বার্মিংহামের ভাইস প্রেসিডেন্ট আশিক মিয়া,বার্মিংহাম বন্ধু মহলের সাধারণ সম্পাদক আসকর উদ্দিন দুলু,বার্মিংহাম সিটি যুবদলের সভাপতি কয়ছর আলী শাহীন,সাধারণ সম্পাদক রাসেল আহমদ,সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম,ওয়েষ্ট মিডল্যান্ডস যুবদলের সভাপতি মোদাচ্ছির খান,সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ চুনু মিয়া,সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ রিয়াজ রহমান,বার্মিংহাম যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম,মিডল্যান্ডস সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি লোকমান চৌধুরী,গ্রেটার মিডল্যান্ডস ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম,দিরাই থানা পাবলিক গ্রæপের উপদেষ্টা এমাদাদুল হক লাভলু,ওয়ালসল স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ,বার্মিংহাম বাংলা স্কুলের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ কাবির,মৌলভীবাজার জেলা জনকল্যান কাউন্সিলের মানবাধিকার সম্পাদক আব্দুল মতলিব,সদস্য রিপন আহমদ,রাজনগর সমাজ কল্যাণ সংস্থার জয়নাল আহমদ,ভিউ ভিলা কমিউনিটি সেন্টারের ডাইরেক্টর এ কে কনর ও জয়নাল আবেদীন,কমিউনিটি নেতা মতিন মিয়া,শাহজাহান মিয়া,আব্দুল ওয়াহিদ,বেলাল মাখন,মুহিবর রহমান,জুনেদ আহমেদ,খসরু মিয়া,শাহীন আহমদ,ব্যবসায়ী কয়েস আহমদ,জাহেদ উদ্দিন সাজু,ফ্রেন্ডস অফ ফ্রেন্ডস মিডল্যান্ডস ইউকে‘র কয়েস আহমদ,মঞ্জুর রহমান,আজমান আহমদ,পলাশ আহমদ,সিলেট স্পোর্টিং ক্লাবের শামীম খান,মুক্তার আহমদ,মাসুক মিয়া,হাফিজ রুমেল আহমদ,আশরাফ হোসেইন,মতিউর রহমান,ইকবাল আহমদ,মুকিত চৌধুরী,সৈয়দ বুরহান,হেলাল আহমদ,মাহফুজ আহমদ,রুনেল আহমদ,ভাটি বাংলার বশির মিয়া,মিসবাহুর রহমান,লিটন আহমদ,মসিউর রহমান,জুয়েল আহমদ,আলী হোসেন,পলাশ মিয়া,আমীর উল্ল্যাহ,আজিজ রহমান প্রমূখ।

গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টিভি ওয়ানের আমিরুল ইসলাম বেলাল,বাংলা মেইল সম্পাদক সৈয়দ নাসির আহমেদ,এটিএন বাংলা ইউকের জয়নাল ইসলাম ও বদরুল ইসলাম,আই অন টিভির লোকমান হোসেন কাজী ও মোহাম্মদ আলী,চ্যানেল এসের রিয়াদ আহাদ ও আহমেদ সুহেল,বাংলা কাগজের আহমেদ সুহেল ও মিজান রেজা চৌধুরী,বিঅন টিভির শিপন আহমেদ ও আনোয়ার হোসেন।

এদিকে সংবাদ সম্মেলনে আনীত নানা অভিযোগ সম্পর্কে নৌকা বাইচ পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ রাজুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসব অভিযোগের অধিকাংশই সঠিক নয় বলে জানান। তিনি জানান,নৌক্ াবাইচ একটি কমিউনিটি ইভেন্ট এবং এই কমিউনিটি ইভেন্টে বাংলাদেশী হাইকমিশনার,কাউন্সিলরসহ কমিউনিটির অধিকাংশদেরই আমন্ত্রন জানানো হয় ; এছাড়া এটি র্সবসাধারণের জন্য উন্মুক্ত,যে কেউ নৌকা বাইচে যেতে পারেন। আব্দুল কুদ্দুছ রাজু বলেন, ফলাফলের বিষয়ে পরিচালনা কমিটির কোনো কর্তৃত্ব নেই,এবিষয়ে অভিজ্ঞ তৃতীয় একটি পক্ষকে দায়িত্ব প্রদান করা হয় এবং তারাই ফলাফল নির্ধারন করে। তবে তিনি সর্বশেষ নৌকা বাইচের ফলাফল নিয়ে কিছুটা বিতর্ক চলে আসায় এবছর বাইচ সংক্রান্ত বিষয়াদির জন্য ভিন্ন একটি প্রতিষ্টানকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে বলেও জানান।

 

 

 


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast