৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে রবিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের জামিনের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে সরকার

newsup
প্রকাশিত নভেম্বর ১, ২০২১
সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের জামিনের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে সরকার

নিউজ ডেস্কঃ সংখ্যালুঘু সম্প্রদায়ের মন্দির, বাড়ি-ঘরে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে সরকার। দেশের বিভিন্ন জেলায় এসব হামলার ঘটনায় ইতোমধ্যে একাধিক ফৌজদারি মামলা দায়েরের পাশাপাশি গ্রেফতার করা হয়েছে জড়িতদের। নেওয়া হয়েছে রিমান্ডেও। আবার জড়িতদের অনেকেই আগাম জামিন চেয়ে উচ্চ আদালতে আবেদন করেছেন। অনেকেই আবার জামিনও পেয়েছেন। কিন্তু সরকার এসব জামিনপ্রাপ্ত আসামিদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছেন। জামিন স্থগিত চেয়ে তড়িৎ গতিতে আবেদন করছেন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে। অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনায় জামিন স্থগিতের পাশাপাশি আসামিরদের আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিচ্ছে আদালত। রবিবার কক্সবাজারের পেকুয়ায় সংখ্যালুঘুদের উপর সংঘটিত হামলার এজাহারনামীয় চার আসামির আগাম জামিন স্থগিত করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেন, শুধু সংখ্যালুঘু নয় যে কোন ঘৃণ্য অপরাধের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন এ ধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িত যেন কোন ধরনের ছাড় না পায়। আইনি সুযোগের যেন অপব্যবহার না করতে পারে। তিনি বলেন, দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতেই সংখ্যালুঘুদের উপর হামলার ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থান নিয়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়েছে। আমরা চাই এ ঘটনায় জড়িতদের আইনানুগভাবে বিচার হবে। দোষী প্রমাণিত হলে শাস্তি হবে।

দূর্গাপুজায় কুমিল্লার নানুয়াদীঘির পাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কোরআন রাখাকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মন্দির ও বাড়ি-ঘরে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দেশের বিভিন্ন জেলায় ৮৫টি মামলা দায়ের করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এসব মামলায় আসামি করা হয়েছে প্রায় ২৪ হাজারের মত। তাদের মধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কয়েকশত আসামিকে। তবে এসব মামলায় হাজার হাজার আসামিদের মধ্যে অধিকাংশই অজ্ঞাতনামা। এ ধরনের একটি হামলার ঘটনা ঘটেছিলো কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলায়।

গত ১৩ অক্টোবর সংঘটিত ওই হামলার মামলায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৫০০ জনকে আসামি করা হয়। এই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি পেকুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি বাহাদুর শাহ, পেকুয়া যুবদল সভাপতি কামরান জাদিদ ওরফে মুকুট, ইউপি সদস্য ও বিএনপি নেতা সাজ্জাদ ও শাহনেওয়াজ গত ২৩ অক্টোবর হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন পান। জামিনের পরই বিষয়টি অ্যাটর্নি জেনারেলকে অবহিত করেন সংশ্লিষ্ট হাইকোর্ট বেঞ্চে দায়িত্বপালনকারী রাষ্ট্রপক্ষের কৌসুলি। এরপরই হাইকোর্টের আগাম জামিন আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়। গতকাল আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে ওই স্থগিত আবেদনের উপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিত দেবনাথ শুনানি করেন। শুনানি শেষে আপিল বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান হাইকোর্টের আগাম জামিনের আদেশ স্থগিত করে চার আসামিকে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে কক্সবাজারের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এরা সকলেই এজাহারনামীয় আসামি। তাদের বিরুদ্ধে মন্দিরে হামলা, পুলিশকে আক্রমণ ও সরকারি কাজে বাধাদানের অভিযোগ রয়েছে। নির্বাচনের কথা বলে এরা উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়েছিলো। চেম্বার আদালত অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনায় নিয়ে আগাম জামিন স্থগিত করে দিয়েছেন।

এদিকে শুধু জামিনই নয় সংখ্যালুঘু সম্প্রদায়ের উপর হামলার ঘটনার মামলার বিচার হবে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে। তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল হলেই দ্রুত ওই সব মামলা বিচারের জন্য উদ্যোগ নেওয়ার ঘোষণা ইতিমধ্যেই দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। এছাড়া গত সপ্তাহে দেশের ছয়টি জেলায় সংঘটিত হামলার বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। বিচার বিভাগীয় তদন্তের পাশাপাশি এখন এসব হামলার পুলিশের তদন্তও চলবে।


সংবাদটি পড়ে ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
November 2021
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  

https://www.booked.net

+22
°
C
+22°
+19°
London
Monday, 29

 

See 7-Day Forecast